মহামারীর পৃথিবীতে নারী । অনীলা পারভীন

  •  
  •  
  •  
  •  

 465 views

আন্তর্জাতিক নারী দিবস ২০২১ এর মূল প্রতিপাদ্য বিষয় হলো- ‘Women Leadership: Achieving an Equal Future in a COVID-19 World’। আমাদের সমাজে প্রবাদ আছে- “মেয়েছেলের কথা শুনলে সংসার চলে না। কারণ, মেয়েদের বুদ্ধি-শুদ্ধি কম, টাকা পয়সার হিসাব বোঝে না। তারা সন্তান জন্ম দেবে আর হাঁড়ি ঠেলবে, সেটাই যথেষ্ট”।
এভাবেই চলছিল হাজার বছরের নারীজীবন। যদিও বহুকাল আগে থেকেই কিছু কিছু নারী এসব সামাজিক বাঁধা উপেক্ষা করেই এগিয়ে গিয়েছেন। এক্ষেত্রে বীণা দাস, প্রীতিলতা ওয়াদ্দেদার, কমলা ভট্টাচার্য, মাতঙ্গিনী হাজরা, অরুনা আসাফ আলী, এমন আরো অনেকের নাম বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য। ব্রিটিশ বিরোধী আন্দোলনে তাদের ভূমিকা ও অবদান ইতিহাসে স্বর্ণাক্ষরে লেখা আছে। কিন্তু তারপরও রাষ্ট্রের নেতৃত্ব অর্জনে নারীদের বহু কাঠখড় পোড়াতে হয়েছে এবং হচ্ছে।

শ্রীলংকায় ১৯৬০ সালে বিশ্বের প্রথম নির্বাচিত নারী রাষ্ট্রপ্রধান হলেন শ্রীমাভো বান্দারনায়েক। এরপর একে একে রাস্ট্রপ্রধান হিসেবে আসেন ভারতে ইন্দিরা গান্ধী ও ইসরাইলের গোল্ডামিয়ার। সেই সময় থেকে এখন পর্যন্ত বিশ্বে মোট ৯০ জন নারী সরাসরি ভোটের মাধ্যমে নির্বাচিত হয়ে রাষ্ট্র শাসন করেছেন। বর্তমানে ১৯৩ টা দেশের মধ্যে ২১ টি দেশে নারী রাষ্ট্রপ্রধান আছেন। বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাদের মধ্যে অন্যতম।

রাষ্ট্র পরিচালনায় নারীদের পদচারণা খুব ধীর গতি মনে হলেও, গত কয়েক দশকে এর সংখ্যা খুব দ্রুত গতিতে বেড়েছে। কারণ, ১৯৮০ সালে যেখানে মাত্র এগারজন নারী রাষ্ট্রপ্রধান ছিলেন, সেটা এখন একুশজনে উন্নীত হয়েছে এবং নারীদের যোগ্যতা প্রমানের সাথে সাথে এই সংখ্যাটি দিনে দিনে আরো বাড়বে বলেই আমাদের বিশ্বাস।
নারীদের ছোট্ট একটা অংশ যখন রাজনীতিতে এবং রাষ্ট্র পরিচালনায় অংশগ্রহণ করছেন, তখন নারীদেরই আরেকটা বিরাট অংশ ভয়ংকর বৈষম্যের শিকার হচ্ছে। গত একটি বছর সমস্ত পৃথিবী মহামারী মোকাবেলায় ক্লান্ত বিপর্যস্ত। এক ভয়ংকর অভিজ্ঞতার মধ্য দিয়ে যেতে হয়েছে, হচ্ছে। এই মহামারী নারীদের জীবনে গভীরভাবে প্রভাব ফেলেছে। গৃহিণী থেকে শুরু করে কর্মজীবী নারীরা বিভিন্ন রকম প্রতিকূলতার সম্মুখীন হয়েছেন। এসময়ে আমাদের জীবনধারায় নতুন নতুন শব্দের উদ্ভব হয়েছে। যেমন- Self-Isolation, Quarantine, Work from Home. এর মধ্যে বাসা থেকে কাজ করার ব্যাপারটি যেমন ইতিবাচক প্রভাব ফেলেছে, তেমনি বেশ কিছু নেতিবাচক প্রভাবও পড়েছে। উদাহরণস্বরুপ বলা যায়- একদিকে নারীদের উপর যেমন নানা রকম অত্যাচার- নির্যাতন, সংসারে অশান্তি ও ভাঙ্গন অনেকাংশে বৃদ্ধি পেয়েছে, অন্যদিকে বেকারত্ব, জন্মহার এবং বৈবাহিক বিচ্ছেদের হারও বেড়েছে।

এই সময়টাতে আমরা লক্ষ্য করেছি ফেইসবুকে মেয়েদের মধ্যে রান্না-বান্নার ছবি দেয়া বেড়ে গেছে। এর কারণ কি? এটা কি শুধুমাত্র ঘরে বসে থেকে সময় পার করাটাই মূল কারণ ছিল? নাকি পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের চাহিদা পূরণ করার ব্যাপারও আছে? ঘরে থেকে থেকে স্বামী ও সন্তানরা আবদারের চূড়ান্ত করে ছেড়েছে। আমাদের সমাজে যেহেতু রান্নার কাজটিকে নারীদের উপরই চাপিয়ে দেয়া হয়েছে, তাই এর সকল চাপ নারীদেরকেই সহ্য করতে হয়। সংসার দেখা শোনা করা, সন্তান লালন-পালন করা, রান্না করা, আর যদি চাকরিজীবী নারী হন তো নয়-পাঁচটা চাকরীও করতে হচ্ছে। একজন নারীকে একই সাথে সকল দায়িত্ব পালন করতে হলেও পরিবারের কোনো সিদ্ধান্ত গ্রহণের ক্ষেত্রে তাঁকে অংশগ্রহণ করতে দেয়া হয় না।

একজন নারী যদি রাষ্ট্র পরিচালনা করতে পারেন, রাষ্ট্রীয় ক্ষেত্রে আইন প্রণয়ন, বিচার বিভাগ এবং শাসন বিভাগের দায়িত্ব পালন করতে পারেন, তবে সে পরিবারের সিদ্ধান্ত নেয়ার ক্ষেত্রে কেনো অংশগ্রহণ করতে পারবেন না?
এজন্য সবার আগে আমাদের মানসিকতার পরিবর্তন প্রয়োজন। এক্ষেত্রে আমাদের বাবা-মা’দের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। পুত্র সন্তানকেকেও শেখাতে হবে, কিভাবে নারীকে সন্মান করতে হয়? কিভাবে মা-বোন-স্ত্রীর সাথে সংসারের কাজে নিজেকে নিয়োজিত করতে হয়? পাশাপাশি একজন কন্যা সন্তানকে ‘মেয়েমানুষ’ নয় বরং ‘মানুষ’ হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। যাতে মেয়েটি ঘরের কাজ শেখার পাশাপাশি ঘরের বাইরের পৃথিবীতে কিভাবে বিচরণ করতে হয়, স্বাবলম্বী হতে হয় তাও শিখতে পারে। তাহলেই একদিন নারী-পুরুষের সমতা ভিত্তিক সমাজ গড়ে উঠবে, নারীরা সঠিক সম্মান এবং মর্যাদা পাবেন।

একজন নারী শুধুমাত্র গৃহকর্মী নয় বরং পরিবার, সমাজ, ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান এবং রাষ্ট্রের নেতৃত্বদানেও সক্ষম। যেহেতু আজ তা প্রমানিত সত্য সেহেতু নারীরা যেন তার নিজ যোগ্যতায় সকল কাজে, পুরুষের পাশাপাশি সমানভাবে অংশগ্রহণ করতে পারে এবং অধিকার প্রতিষ্ঠায় সোচ্চার হয়। এই মহামারীর পৃথিবীতে এটাই হোক নারীদের অঙ্গীকার।

অনীলা পারভীন
লেখক, সংগঠক; 
কর্মকর্তা, ইউনিভার্সিটি অফ সিডনি, অস্ট্রেলিয়া।

0 0 vote
Article Rating
Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments