অস্ট্রেলিয়ায় জেল হত্যা দিবস পালিত

  •  
  •  
  •  
  •  

 249 views

প্রশান্তিকা ডেস্ক: গত ৩রা নভেম্বর মঙ্গলবার বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ অস্ট্রেলিয়া শাখা জাতীয় চারনেতা স্মরণে জেল হত্যা দিবস পালন করে। এ উপলক্ষ্যে বাঙালী অধ্যুষিত সিডনির ধানসিঁড়ি রেস্টুরেন্টের ফাংশন সেন্টারে দোয়া ও আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

সিডনিতে স্থানীয় রেস্টুরেন্টের ফাংশন সেন্টারে জেলহত্যা দিবসের আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখছেন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ অস্ট্রেলিয়ার সভাপতি সিরাজুল হক।

সংগঠনের সভাপতি আইনজীবী মোঃ সিরাজুল হকের সভাপতিত্বে ও সাধারন সম্পাদক পি এস চুন্নুর সঞ্চালনে অনুষ্ঠানটিতে টেলি কনফারেন্সে বাংলাদেশ থেকে বক্তব্য দেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির নির্বাহী সদস্য প্রাক্তন সাংসদ ও বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী সানজিদা খাতুন, সাবেক আই জি পি জনাব নূর মোহাম্মদ এম.পি, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক জনাব সফিউল আলম চৌধুরী নাদেল ও সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক: জনাব অসীম কুমার উকিল।

স্থানীয় নেতৃবৃন্দের মধ্যে বক্তব্য রাখেন মেহেদী হাসান, শিক্ষক ,কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়; ইমদাদুল হক বকুল, সহ সভাপতি, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, অস্ট্রেলিয়া; আবদুল খান রতন, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, অস্ট্রেলিয়া; আবুল বাশার রিপন, সাবেক ঢাকা মহানগর ছাত্রনেতা ও এাণ ও দূর্যোগ বিষয়ক সম্পাদক, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, অস্ট্রেলিয়া;  বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সিডনীর, সহসভাপতি ; আলতাফ হোসেন লাল্টু, নির্মল কষ্টা, কোষাধ্যক্ষ মো: আবদুস সালাম, ও বাংলাদেশ ছাত্রলীগ অস্ট্রেলিয়ার সভাপতি আমিনুল  ইসলাম রুবেল।

প্রাক্তন সাংসদ আইনজীবী সানজিদা খাতুন বলেন, জাতীয় চারনেতাকে হত্যা করা ছিল পরিকল্পিত এবং পনোরই আগস্টের ধারা বাহিকতা। প্রাক্তন আই জি পি ও সাংসদ নূর মোহাম্মদ বলেন, এটি একটি জঘন্য হত্যাকান্ড এবং সেসময়ে রাষ্ট্র- জান্তার সহযোগিতায় হত্যা করা হয়েছিল প্রিয় নেতাদের। সাংসদ ও কেন্দ্রীয় সাংস্কৃতিক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল বলেন চার-নেতার হত্যার পিছনে জিয়ারও হাত রয়েছে। স্বাধীনতার পরাজিত শক্তির দোসরা দেশটিকে উল্টো ধারায় নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন। তারা বাঙ্গালীর স্মৃতিতে অম্লান থাকবেন। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জনাব শফিউল আলম চৌধুরী নাদেল বলেন, বঙ্গবন্ধু মুজিবের ছায়া সঙ্গীছিলেন এই জাতীয় চার নেতা। বঙ্গবন্ধুর অবর্তমানে জাতীয় চারনেতারাই এই স্বাধীনতার সংগ্রামকে চালিয়ে নিয়ে যান। আমরা তাদের চিরকাল স্মরণ করবো শ্রদ্ধা সহকারে।

বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ অস্ট্রেলিয়ার সভাপতি মোঃ সিরাজুল হক তার সমাপনী বক্তব্যে বলেন যখন জনাব তাজউদ্দীন আহমেদ মন্ত্রী ছিলনা তখন তাকে প্রধান-মন্ত্রীর অফার দিয়েছিলো খুনি মোস্তাক। বঙ্গবন্ধুর প্রতি তার অগাধ শ্রদ্ধা -ভালোবাসা ও রাজনীতির সুললিত পথের প্রজ্ঞায় প্রধানমন্ত্রীর পদকে ফেলে দিয়ে বঙ্গবন্ধুর জন্য জীবন সপেঁ ছিলেন নেতার জন্য। পৃথিবীতে এই ত্যাগী পুরুষ বিরল জাতীয় বীরদের এই ত্যাগ আমাদের প্রজন্ম থেকে প্রজন্মের গবেষণার বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। জাতীয় নেতাদের রুহের মাগফেরাত, প্রধান মন্ত্রীর দীর্ঘায়ু ও বাংলাদেশের মানুষের শুভ কামনায় মোনাজাত করেন জনাব  হাবিব হাসান টুলু।
সংবাদ বিজ্ঞপ্তি।

0 0 votes
Article Rating
Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments