ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া: দৈনিক দিনকালে আবরার হত্যার আসামী’র ছবিতে ছাপা হলো লেখক সাদাত হোসাইনের ছবি

  •  
  •  
  •  
  •  

প্রশান্তিকা রিপোর্ট: বুয়েট ছাত্র আবরার হত্যার অভিযোগে গ্রেফতারকৃত নাজমুস সাদাতের ছবিতে জনপ্রিয় কথাসাহিত্যিক ও নির্মাতা সাদাত হোসাইনের ছবি ছাপিয়েছে ঢাকার জাতীয় পত্রিকা দৈনিক দিনকাল। ড. রেজোয়ান সিদ্দিকী ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক হিসেবে পত্রিকাটিতে রয়েছেন।দৈনিক দিনকাল গত ১৬ অক্টোবর সংখ্যার প্রথম পাতায় হেডলাইন করে, “অভিযুক্ত সাদাতকে বিরামপুর থেকে আটক করেছে পুলিশ”। আর সেখানেই আসামীর পরিবর্তে লেখক সাদাতের ছবি ছাপা হয়। খবরটি দিনকাল রিপোর্ট হিসেবে ছাপা হয়েছে।

দৈনিক দিনকালের ১৬ অক্টোবর প্রকাশিত প্রথম পাতায় আসামী নাজমুস সাদাতের ছবিতে ঔপন্যাসিক সাদাতের ছবি

এতো বড় একটি ভুল করার পরও দিনকাল এখনো দু:খ প্রকাশ করে সংশোধনী ছাপেনি। ভুলটি দৈনিকের প্রিন্ট ও অনলাইন ভার্সনে প্রকাশিত হয়েছে। খবরটির কারনে সাদাত হোসাইনের ভাবমূর্তি ও ইমেজ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে জানিয়ে সাদাতের স্ত্রী উম্মে নুসরাত ঢাকার শেরে বাংলা নগর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করেছেন। ঔপন্যাসিক সাদাত সেই মুহূর্তে পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে একটি অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে অবস্থান করছিলেন। পটুয়াখালী থেকে ফোনে সাদাত হোসাইন প্রশান্তিকাকে বলেন, এতো বিব্রতকর পরিস্থিতি কখনই পড়েননি। তিনি ভুলটির আশু সমাধান চান । তিনি পটুয়াখালী থেকে ঢাকায় ফিরেই এর ব্যবস্থা নেবেন বলেন জানান।

পটুয়াখালীতে একটি অনুষ্ঠানে লেখক সাদাত হোসাইন

লেখক সাদাত হোসাইন তার ফেসবুক স্ট্যাটাসে লেখেন, ‘আমি বিষয়টি দেখেছি। (দৈনিক দিনকাল পত্রিকার ১৬ অক্টোবর সংখ্যার প্রথম পাতার প্রথম কলামে সম্প্রতি ঘটে যাওয়া আবরার ফাহাদ হত্যাকাণ্ডের সংবাদে অভিযুক্ত ‘সাদাত’ নামক আসামির গ্রেপ্তারের সংবাদে ‘ভুলক্রমে অথবা উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে’ পত্রিকার অনলাইন ও প্রিন্টিং ভার্সনে আমার ছবি ছাপা হয়েছে) বিষয়টি নিয়ে আমি পুলিশের সাথে কথা বলেছি। জিডি করার প্রক্রিয়াও চলছে। সংশ্লিষ্ট পত্রিকার সাথেও যোগাযোগের চেষ্টা চলছে। আমি একটি প্রোগ্রামে যোগ দেয়ার জন্য যাত্রাপথে থাকায় প্রক্রিয়াগুলো একটু বিলম্বিত হচ্ছে। কিন্তু বিষয়টির গুরুত্ব বিবেচনায় যতদ্রুত সম্ভব যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে। আশা করছি আপনারা যারা বিষয়টি নিয়ে কনসার্ন এবং অনলাইনে ইতোমধ্যেই বিষয়টি ছড়িয়েও পড়েছে, তারা সকলেই সুবিবেচনা প্রসূত আচরণ করবেন। সবার জন্য ভালোবাসা।
আর, দেশের সকল সংবাদমাধ্যম এবং সংবাদকর্মীদের প্রতি আহবান যেন আপনাদের অসচেতনতার কারণে এমন ভোগান্তির শিকার কাউকে না হতে হয়।’

খবরটি প্রকাশ হওয়ার পর দেশে ও বিদেশে সাদাত হোসাইনের অসংখ্য পাঠক ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন। তারা সোশ্যাল মিডিয়ায় বিষয়টিকে নিছক ভুল না ভেবে ষড়যন্ত্র ও দায়িত্বহীনতা হিসেবে  আখ্যায়িত করেন।

উল্লেখ্য, আবরার হত্যা মামলার আসামি নাজমুস সাদাতকে দিনাজপুর জেলার বিরামপুর থানার কাটলা বাজার থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। বুধবার তাকে পাঁচ দিনের রিমান্ডে নেয় পুলিশ। তিনি বুয়েটের যন্ত্রকৌশল বিভাগের ১৭তম ব্যাচের শিক্ষার্থী। তিনি জয়পুরহাটের কালাই থানার কালাই উত্তরপাড়ার হাফিজুর রহমানের ছেলে।