প্রশান্ত পাড়ের পরিবার নিয়েই প্রশান্তিকা

4064

 

শরিফা তাসমীম টুলটুলী

লেখক, শিক্ষক, কমিউনিটি ওয়ার্কার যার চিন্তা চেতনায় মিশে আছে বাংলা ও বাংলাদেশ এবং প্রবাস জীবনেও ধরে রেখেছেন তা সযতনে।শরিফা টুলটুলী প্রশান্তিকার পার্থ, অস্ট্রেলিয়ার মুখ।

 


রাফিয়া হাসিন জুঁই

জনপ্রিয় রেডিও উপস্থাপক, শিল্পী এবং ইন্টেরিওর ডিজাইনার। বহুমুখী প্রতিভার, ঝকঝকে চিন্তা চেতনার প্রগতিশীল এই তরুণী আমাদের মেলবোর্ন, ভিক্টোরিয়ার মুখ।

 

 

নামিদ ফারহান

সিডনির পরিচিত মুখ নামিদকে প্রায়ই ঢোল বা তবলা নিয়ে বিভিন্ন অনুষ্ঠানে সঙ্গত করতে দেখা যায়। কবিতা, গদ্য কার্টুন লেখায় তার জুড়ি মেলা ভার। নামিদ প্রশান্তিকার সিডনি, অস্ট্রেলিয়ার প্রিয় মুখ।

 

 

 

 


তানজিনা ফেরদৌস তাইসিন

সংস্কৃতি কর্মী, লেখক, তারুণ্য দীপ্ত উজ্জ্বল ঝকঝকে চিন্তা চেতনার এই তরুণী আমাদের এডেলেড, সাউথ অস্ট্রেলিয়ার মুখ। সাউথ অস্ট্রেলিয়ার খবর পেতে ও তার ঝকঝকে লেখার জন্য তাইসিন ও প্রশান্তিকার সঙ্গে থাকুন।

 

 


সৈয়দ রহমান মিঠু

চারুকলা থেকে পাশ করা উদ্দীপ্ত তরুনকে প্রশান্তিকায় পেয়ে আমরা গর্ব করি। শিল্পী ও সাংস্কৃতিক এবং কমিউনিটির পরিচিত মুখ মিঠু আমাদের সিডনির প্রিয় ব্যক্তিত্ব।

 

 

 

 

ফাহাদ আসমার

তিনি নিজেকে ভবঘুরে মানুষ ভাবতে পছন্দ করেন। কোন কিছু হারাবার নেই ভেবেই তিনি অজানার উদ্দেশ্যে বেরিয়ে পড়েন। পেশায় ফটোগ্রাফার এবং স্কুবা ডাইভিং ইনস্ট্রাকটর। এই উদীয়মান তরুন কবিতা, গদ্য ও ফিচার লিখেন চমৎকার।

 

 


নাদিরা সুলতানা নদী

সংস্কৃতি কর্মী, প্রাক্তন ছাত্র নেতা, রেডিও উপস্থাপক, গল্পকার, কবি ও লেখক। ভোরের কাগজে লেখালেখির হাতেখড়ি হয়েছে প্রয়াত ফিচার লেখকদের শিরোমনি সঞ্জীব চৌধুরীর সঙ্গে। এখনও লেখালিখিই তার ধ্যান ও জ্ঞান। নদীর বাস মেলবোর্ন, অস্ট্রেলিয়ায়। তিনি প্রশান্তিকার সহযোগী সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

 

 

কাজী ইসলাম ফাগুন

কাজ করছেন সিডনির একটি রিয়েল এস্টেটে। মন ও মননে একজন সংস্কৃতি কর্মী ও সংগঠক। হাস্যোজ্বল এই মানুষটি সকলের কাছে প্রিয় ফাগুন নামে পরিচিত। তার সম্পর্কে একটা কথা বলা যায়, তিনি যে কাজই করেছেন সফলভাবেই শেষ করেছেন। প্রশান্তিকায় অন্যান্য কাজের পাশাপাশি তিনি সেলস্, মার্কেটিং ও বিজ্ঞাপনে কাজ করবেন।

 

আরিফুর রহমান পাশা

উপন্যাসিক, গল্পকার ও আবৃত্তিকার। ‘স্বপ্নজাল’ও ‘সন্ধ্যারাগ’ উপন্যাস লিখে জনপ্রিয় হয়েছেন। কমিউনিটিতে প্রিয় ব্যক্তি আরিফ বাস করছেন সিডনিতে। তিনি প্রশান্তিকায় বার্তা সম্পাদকের কাজ করছেন।

 

 

 


তুলি নূর

ব্রিসবেন তথা সারা অস্ট্রেলিয়ায় প্রিয় মুখ তুলি নূর সকলের প্রিয় তুলি আপা। তিনি কমিউনিটিতে সাংস্কৃতিক সংগঠক হিসেবে খুব পরিচিত। সব পরিচয় ছাপিয়ে এখন লেখক হিসেবেই আমরা বেশি চিনি তাকে। প্রবাসে বসে নিয়মিত প্রথম আলো সহ বিভিন্ন মিডিয়ায় লিখে যাচ্ছেন।তুলি নূর ব্রিসবেন, অস্ট্রেলিয়া থেকে নিয়মিত প্রশান্তিকার জন্য লিখবেন।

 


নাসির উদ্দিন

সফল ব্যবসায়ী ও সাংগঠনিক। তিনিও ব্যস্ত রিয়েল এস্টেট ব্যবসায়। সিডনির প্রিয় মুখ নাসির প্রশান্তিকায় ব্যবসা বাণিজ্য তথা বিজ্ঞাপন নিয়ে কাজ করছেন। আমরা গর্বিত তার মতো একজন সফল মানুষকে দলে পেয়ে।

 

 


ফারিনা মাহমুদ সিলভি

সামাজিক মাধ্যমগুলোতে খুব সরব।চমৎকার গদ্য কার্টুন লিখেন; গল্প বা গান কবিতা লিখতেও সিদ্ধহস্ত। সম্প্রতি সিডনি ছেড়ে মেলবোর্নে পাড়ি দিয়েছেন। কিন্তু প্রশান্তিকা ছেড়ে যাননি। শুরু থেকেই প্রদায়ক সম্পাদকের দায়িত্বে আছেন।

 

 

আতিকুর রহমান শুভ

একজন স্বপ্নবাজ, মন ও মননে যার বাংলা, বাংলাদেশ এবং বাংলার মানুষ।আজকের কাগজের প্রাক্তন সংবাদকর্মী। লেখালিখি তার ভালোবাসা। প্রশান্তিকা, প্রশান্ত পাড়ের বাঙলা কাগজের তিনি সম্পাদক।

 

প্রশান্তিকার নিয়মিত লেখকদের বাইরে আরো লিখেছেন এবং লিখবেন শ্রদ্ধেয় রণেশ মৈত্র, অজয় দাসগুপ্ত, সাদাত হোসাইন, সিডনির প্রিয়জন নাট্যকার জন মার্টিন, ফখরুল আবেদীন মিলন, সালেহ জামী, ইসহাক খান, কাওসার আহমেদ চৌধুরী, কাজী সুলতানা শিমি, হ্যাপি রহমান সহ আরো অনেকে।তাদের অনেকেই অনলাইন সংখ্যায় কলম ধরবেন। আসছে সংখ্যায় আরো চমক নিয়ে আসছেন আরো ক’জন জনপ্রিয় লেখক। সময় হলেই জানিয়ে দেবো এবং আপনারা দেখতে পারবেন। শুভাকাঙ্খী, পাঠক,লেখক, বিজ্ঞাপন দাতা, ব্যবসায়ী ও শুভান্যুধায়ী সবাইকেই আমরা প্রশান্তিকার পরিবারের অন্তর মনে করি। আপনারা প্রশান্তিকার সঙ্গে থাকুন।

পাদটীকা: প্রশান্তিকা পরিবারের কমবেশি সকলের সম্পর্কে লিখেছেন সহযোগী সম্পাদক নাদিরা সুলতানা নদী। নদী সম্পর্কের অংশটুকু লিখেছেন অন্যজন।