বসন্তের সিডনি শাখাঃ জ্যাকারান্ডা কনটেস্ট-২০২০ পুরস্কার

  •  
  •  
  •  
  •  

প্রশান্তিকা ডেস্ক: ‘বসন্তের সিডনি শাখাঃ জ্যাকারান্ডা কনটেস্ট ২০২০’ বিজয়ীদের পুরস্কার বিতরণ উপলক্ষে জাঁকজমকপূর্ণ এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। গত ১৩ ডিসেম্বর, রবিবার বিকেল ৪টায় সিডনির লাকেম্বায় গ্রামীন রেস্টুরেন্টে আয়োজিত অনুষ্ঠানে মূলত দুটি ক্যাটাগরিতে মোট ১২ জন প্রতিযোগীকে পুরস্কৃত করা হয়।

ফেসবুকভিত্তিক এই কনটেস্টের আয়োজন করেছিলেন কথাসাহিত্যিক এবং অধ্যাপক ড. শাখাওয়াৎ নয়ন ও শিশু সাহিত্যিক অনীলা পারভীন। অস্ট্রেলিয়ায় বাংলাদেশি কমিউনিটির অনেকে তাঁদের এই উদ্যোগে সাড়া দিয়ে মাসব্যাপী এই প্রতিযোগিতায় মেতে উঠেছিলেন। অতঃপর ফেসবুকে শুরু হয় নিজ নিজ ছবিতে লাইক ও কমেন্টস বাড়ানোর প্রতিযোগিতা। করোনা ভাইরাসের এই মনখারাপের দিনগুলিতে জ্যাকারান্ডা কনটেস্ট অস্ট্রেলিয়ায় বাংলাদেশি কমিউনিটির মাঝে এক ভিন্ন ধরনের উৎসবের আমেজ ছড়িয়ে দেয়ার পাশাপাশি দেশ-বিদেশে এটি ব্যাপকভাবে প্রশংসিত হয়।

গত নভেম্বর মাসজুড়ে জ্যাকারান্ডা ফুলের সাথে তোলা ছবি ও ভিডিও পোস্ট করে প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করেন প্রায় দেড় শতাধিক প্রতিযোগী। তাদের মধ্য থেকে দর্শকদের লাইক ও কমেন্টসের ভিত্তিতে পপুলার ক্যাটাগরি এবং জুরি বোর্ডের বিচারকদের মনোনয়নে মোট ১২ জন প্রতিযোগীকে পুরস্কারের জন্য মনোনীত করা হয়। পপুলার ক্যাটাগরিতে ফটো অপশনে চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন প্রিন্সেস পাপড়ি, প্রথম রানার-আপ নুজহাত লোপা এবং দ্বিতীয় রানার-আপ হয়েছেন তিশা তানিয়া। ভিডিও অপশনে চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন রাত্রি, প্রথম রানার-আপ প্রিন্সেস পাপড়ি এবং দ্বিতীয় রানার-আপ হয়েছেন রুদাবা আদনীন সামা।

অন্যদিকে জুরি বোর্ডের মনোনয়নে ছবি অপশনে চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন এ নাজ শ্রাবণী, প্রথম রানার-আপ চন্দ্র বিন্দু এবং দ্বিতীয় রানার-আপ হয়েছেন শাহিন সুলতানা শিমু। ভিডিও অপশনে চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন এডওয়ার্ড অশোক অধিকারী, প্রথম রানার-আপ মুশরাত জাহান মিশু এবং দ্বিতীয় রানার-আপ হয়েছেন মিজানুর রহমান মুকুল। কনেটেস্টে অংশগ্রহণকারী শিশুদের মধ্য থেকে স্পেশাল ক্যাটাগরিতে ছয়জনকে পুরস্কৃত করা হয়। তারা হলো- আফরা, ইনসা জুহানা, নাফিয়া নূর ইয়াশা, শাহ তাজ-আরিবা কবির, অনিন্দ্য ও মাহিকা।

অনুষ্ঠানের শুরুতে শুভেচ্ছা বক্তব্যে ‘বসন্তের সিডনি শাখা : জ্যাকারান্ডা কনটেস্ট ২০২০’ ফেসবুক গ্রুপের অ্যাডমিন এবং আয়োজক অনীলা পারভীন বলেন, “অস্ট্রেলিয়ার বসন্তের রঙ ও আনন্দ সবার মাঝে ছড়িয়ে দেয়ার প্রয়াসে এই প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছিলাম।”

জ্যাকারান্ডা কনটেস্ট বিষয়ে জানতে চাইলে ড. শাখাওয়াৎ নয়ন বলেন, “জ্যাকারান্ডার প্রতি অগাধ ভালোলাগা থেকেই এ প্রতিযোগিতার আয়োজন। আশা করছি। আপনাদের সহযোগিতা পেলে আগামী বছরও একইভাবে এ ধরনের প্রতিযোগিতার আয়োজন করতে পারব। ”

জ্যাকারান্ডা কনটেস্ট অস্ট্রেলিয়ায় বাংলাদেশি কমিউনিটিতে উৎসবের কেমন আমেজ তৈরি করেছিল, সে বিষয়ে জানতে চাইলে পেন্সিল অস্ট্রেলিয়ার অ্যাডমিন এবং জ্যাকারান্ডা কন্টেস্ট গ্রুপের মডারেটর সাকিনা আক্তার প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী সকলকে ধন্যবাদ জানান।

কনটেস্টে জুরি বোর্ডের দায়িত্বে ছিলেন বিশিষ্ট লেখক ও আলোকচিত্র শিল্পী কবির উদ্দিন সরকার ও বিপুল রায়। বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার হিসেবে প্রদান করা হয় ক্রেস্ট ও ফুলের ক্রাউন। অনুষ্ঠান উপস্থাপনা করেছেন তাম্মি পারভেজ এবং মাসুদ পারভেজ। গানে এবং কবিতায় অনুষ্ঠান উপস্থাপনা ছিল মনোমুগ্ধকর। প্যাট্রিশিয়া ডায়ায মেন্ডিজ, পলাশ বশাক এবং সালেহ জামী সুরের মুর্ছনায় ভরিয়ে তোলেন দর্শদের মন। তবলায় সংগত করেছেন সাকিনা আক্তার। আফসানা যূথী আবৃত্তি করেন জয় গোস্বামীর কবিতা “মালতীবালা বালিকা বিদ্যালয়”। মিতা দে স্বরচিত কবিতা “বসন্তের দূত” এবং নাহার পলি আবৃত্তি করেন শাখাওয়াৎ নয়নের কবিতা ‘বসন্তের সিডনি শাখা’। অনুষ্ঠানের শেষ প্রান্তে শাখাওয়াৎ নয়ন অনেকের দাবি এবং প্রত্যাশার জবাবে ২০২১ সালের নভেম্বর মাসব্যাপী আবার জ্যাকারান্ডা কন্টেস্টের ঘোষনা দেন। আগামী বসন্তে দ্বিগুন হবার আশাবাদ ব্যক্ত করে সবাইকে নৈশ ভোজে আহবানের মধ্যে দিয়ে তিনি অনুষ্ঠানের সমাপ্তি টানেন।
সংবাদ বিজ্ঞপ্তি।

0 0 votes
Article Rating
Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments