বাংলাদেশে করোনা ক্রান্তিকালে অসহায় মানুষের পাশে বিজ্ঞান কলেজের ‘৯১ ব্যাচ

  •  
  •  
  •  
  •  

প্রশান্তিকা ডেস্ক: কোভিড-১৯ বা করোনাভাইরাসের সংক্রমণে স্থবির হয়ে পড়েছে সারা বিশ্ব। চীনের উহান প্রদেশে এই ভাইরাসটি প্রথম দেখা গেলেও এটি আজ পৃথিবীর প্রায় সব দেশে ছড়িয়ে পড়েছে। উন্নত বিশ্ব থেকে শুরু করে নিম্ন আয়ের দেশগুলো এই ভাইরাস থেকে মুক্তি পাবার জন্য মরিয়া হয়ে চেষ্টা চালিয়েও আজ ব্যর্থ।
করোনার কারণে গত কয়েক মাস ধরে বাংলাদেশও যেন থমকে আছে। দীর্ঘদিন বন্ধ ছিলো গণপরিবহন, স্কুল-কলেজগুলোতে নেই বাচ্চাদের কলরব। আমাদের অর্থনীতির চাকা সচল রাখার প্রধান খাত গার্মেণ্টস শিল্পও এর প্রভাবে মুখ থুবড়ে পড়েছে। রাজধানীর বিভিন্ন সড়ক কিংবা মার্কেটপ্লেসগুলো যেন ভূতুড়ে এলাকায় পরিণত হয়েছে অথচ জায়গাগুলো মানুষের পদচারণায় মুখর থাকতো সবসময়। মানুষ এখন পথে নামতেও ভয় পায়।

দীর্ঘ সময় ধরে লকডাউনে সবচেয়ে বিপাকে পড়েছে বাংলাদেশের নিম্ন আয়ের মানুষ। যারা দিন আনে দিন খায়, এইসব খেটে খাওয়া মানুষগুলোর জীবন-জীবিকা যেন থমকে পড়েছে। অনাহারে-অর্ধাহারে দিন কাটছে তাদের। গার্মেন্টস কর্মী, পরিবহণ শ্রমিক, দিনমজুর ও হকার থেকে শুরু করে বিক্রয় কর্মীদের আয়ের পথ রুদ্ধ। এই বিশাল জনগোষ্ঠীর জন্য কেবল সরকারী অনুদান যথেষ্ট নয়। এগিয়ে আসতে হবে সমাজের বিত্তশালীদেরও। দেশের বিভিন্ন প্রান্তে ব্যক্তিগত পর্যায় থেকে আমরা অনেকেই এইসব অসহায় মানুষদের সাহায্য সহযোগিতা করে যাচ্ছি, এগিয়ে আসছে বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন।

বিজ্ঞান কলেজের ‘৯১ ব্যাচের সতীর্থরা সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন করোনা ক্রান্তিকালে।

এই লক্ষ্যেই GSC91 বা সরকারী বিজ্ঞান কলেজের ‘৯১ ব্যাচের সতীর্থরা অসহায় মানুষের প্রতি সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে।
GSC91 (Govt. Science College, 1991 Batch), সরকারী বিজ্ঞান কলেজের ১৯৮৯-১৯৯১ সালের শিক্ষাবর্ষের সতীর্থদের নিয়েই মূলত এই গ্রুপ। GSC91 এর সদস্যদের সম্মিলিত প্রয়াস আজকের এই COVID-19 ত্রাণ তহবিল। এই তহবিল থেকে দু’টি ধাপে ত্রাণ বিতরণের উদ্যোগ নেয়া হয়েছিলো।
প্রথম ধাপ সম্পন্ন হয়েছিলো গত ৬ই ও ৭ই মে। মিরপুর, রায়ের বাজার, উত্তরা, বাড্ডা ডিআইটি প্রজেক্ট ও মধ্যবাড্ডা আদর্শনগর, বনশ্রী ও বাসাবো এলাকায় এই দুইদিনে সর্বোমোট ২০০ প্যাকেট ত্রাণ ২০০ অসহায় পরিবারের মাঝে বিতরণ করা হয়েছে। নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য সামগ্রীর সমন্বয়ে ১০কেজি চাউলসহ ১৭ কেজির ১টি প্যাকেট প্রতি পরিবারের জন্য নির্ধারণ করা হয়েছিলো, যা তাদের কিছুটা হলেও দৈনান্দিন প্রয়োজন মেটাতে সহায়তা করেছে।
একই ধারাবাহিকতায় গত ২১শে মে সম্পন্ন হলো দ্বিতীয় ধাপে ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রম। কয়েকটি ভাগে ঢাকার ৬টি এলাকায় যেমন- মিরপুর, উত্তরা, রায়ের বাজার, বাড্ডা, বাসাবো ও বনশ্রীতে ২০৭ টি অসহায় পরিবারের মাঝে ত্রাণসামগ্রী বিতরণ সম্পন্ন করা হয়েছে। এসব ত্রাণসমগ্রীর মধ্যে রয়েছে মানুষের নিত্য প্রয়োজনীয় খাদ্যসামগ্রী যেমন- চাল, ডাল, তেল, লবন, চিনি, আলু, পেঁয়াজ, সাবান ইত্যাদি। সংগঠনের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে- পরবর্তী ধাপে ঢাকার অন্যান্য এলাকায় ত্রাণ বিতরণের উদ্যোগ নেয়া হবে।

GSC91 গ্রুপের বন্ধুদের আন্তরিক স্বদিচ্ছার কারণেই এই ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রম সম্পন্ন করা সম্ভব হয়েছে। অসহায় মানুষের চরম বিপদের দিনে এই গ্রুপের বন্ধুরা সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন। আমরা প্রত্যাশা করছি আগামী দিনগুলোতেও GSC91 এর বন্ধুরা দেশের বিভিন্ন ক্রান্তিলগ্নে মানুষের পাশে এসে দাঁড়াবে। বিভিন্ন সামাজিক কর্মকাণ্ডে এভাবেই অংশগ্রহণ করবেন।

0 0 votes
Article Rating
Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments