বুদ্ধিজীবিদের বিবৃতি: কারো হাতে ” মুক্তিযুদ্ধের বাংলাদেশ” জিম্মি থাকতে পারেনা!

  •  
  •  
  •  
  •  

 

বাংলাদেশ

প্রশান্তিকা ডেস্ক: বাংলাদেশের বিশ্ববিদ্যালয় গুলোতে অনিয়ম, বুয়েটের ছাত্র আবরার হত্যা, সহিংসতা ও দেশে মাদক, ক্যাসিনো ব্যবসা, হত্যাকাণ্ডসহ সকল অনাচারের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করে আজ বিবৃতি দিয়েছেন ১১জন বুদ্ধিজীবি। প্রশান্তিকার পাঠকদের জন্য বিবৃতিটি দেয়া হলো:

এক গভীর উৎকন্ঠা ও অসীম বেদনায় নিমজ্জিত আজ পুরো জাতি।বুয়েট শিক্ষায়তনে সহপাঠি আবরার ফাহাদকে একদল ছাত্রলীগ কর্মী কতৃক নির্মমভাবে হত্যা। সাম্প্রতিক সময়ে যুবলীগ নামক যুব সংগঠনের সামজিক অনাচার,মাদক ব্যবসা ও দূর্নীতির অবিশ্বাস্য নিদর্শন আমাদের দারুনভাবে হতাশ ও ক্ষুব্ধ করেছে।বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান প্রতিষ্ঠিত ছাত্র ও যুব সংগঠনের এ বিপথগামীতা আমাদের হতাশ ও ব্যথিত করে।
সাম্প্রতিক সময়ের ঘটনা সমূহ প্রমাণ করে রাজনৈতিক দলের আদর্শ বিহীন দেউলিয়া চরিত্র। আমাদের রাজনৈতিক দল সমূহ সম্পূর্ণরূপে ব্যর্থ তাদের ছাত্র , যুব ও দলীয় কর্মীদের নিয়ন্ত্রণ করতে। শুধু তাই নয়, কোন প্রকার আদর্শের ভিত্তিতে দল ও অঙ্গ সংগঠন পরিচালনা না করে শুধু পেশী শক্তি-নির্ভর দল গঠন ও পরিচালনা কি ভয়াবহ পরিণতি আনয়ন করে তা আজ সবার সামনে স্পষ্ট হয়ে উঠেছে।

আবরার হত্যার শুধুমাত্র দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির মাঝে আমাদের এ ভয়াবহ সংকট নিরসন হবে বলে আমরা বিশ্বাস করিনা। আমরা মনে করি মানবিক মূল্যবোধের যে ভয়াবহ দুর্ভিক্ষ আজ জাতিকে গ্রাস করেছে,তা থেকে মুক্তি পেতে হলে সরকার,শাসক দল ও সকল রাজনৈতিক দলকে নিজ নিজ দল, অঙ্গ সংগঠন,সরকার ও প্রশাসনের অভ্যন্তরে মানবিক মূল্যবোধ ও সহনশীল-সংস্কৃতির বীজ উপ্ত করতে হবে। বিশেষকরে সরকার ও সরকারী দলকে এ কাজে অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে হবে।অন্যথায় জাতি এক ভয়াবহ দুর্যোগের মুখোমুখি হবে।
কতিপয় উচ্ছৃঙ্খল আদর্শহীন যুব ও ছাত্র সংগঠনের হাতে মুক্তিযুদ্ধের বাংলাদেশ জিম্মি থাকতে পারেনা।
আমরা অতিদ্রুত এই সংকট থেকে জাতি ওদেশকে রক্ষা করতে সরকারের আশু পদক্ষেপ প্রত্যাশা করি।
একইসাথে জনগনকে সচেতন ভূমিকা রাখার বিনীত আহ্বান জানাই!

বিবৃতি দাতা—–
১)আনিসুজ্জামান ২)আবদুল গাফ্ফার চৌধুরি ৩)সৈয়দ হাসান ইমাম ৪)হাসান আজিজুল হক।৫)অনুপম সেন ৬)সরোয়ার আলী ৭)রামেন্দু মজুমদার ৮)ফেরদৌসী মজুমদার ৯)মামুনুর রশীদ ১০)মফিদুল হক ১১)নাসির উদ্দীন ইউসুফ।