মিতা হক আর নেই

  •  
  •  
  •  
  •  

 325 views

প্রশান্তিকা ডেস্ক: বরেণ্য রবীন্দ্রসঙ্গীত শিল্পী মিতা হক আজ রোববার না ফেরার দেশে চলে গেছেন (ইন্না লিল্লাহি…রাজেউন)। তিনি দীর্ঘদিন ধরে কিডনি জটিলতাসহ অন্যান্য রোগে ভূগছিলেন। তাঁর ঘনিষ্ঠজন সূত্রে জানা গেছে, আজ রোববার ভোরে ঢাকার স্পেশালাইজড হাসপাতালে তিনি মারা গেছেন। প্রায় দুই সপ্তাহ ধরে তিনি করোনায় ভূগছিলেন। মাত্র দুইদিন আগে তাঁর করোনা রিপোর্টে নেগেটিভ আসে। চিকিৎসকেরা তাঁকে বাসায় পাঠিয়ে দেন।তিনি দীর্ঘদিন ধরে কিডনি ও ডায়াবেটিসে ভূগছিলেন এবং তার কিডনিতে একদিন পরপর ডায়ালিসিস করতে হতে। গতকাল বিকেলে কিডনি ও ডায়াবেটিসে আক্রান্ত হলে তাঁকে আবারও হাসপাতালে নেয়া হয়। অবশেষে আজ সকাল ৭.১৫ টায় মারা গেলেন তিনি। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিলো ৫৯ বছর। মৃত্যুকালে তিনি একমাত্র কন্যা ফারহিন খান জয়া, অসংখ্য আত্মীয় স্বজন, ভক্ত ও অনুরাগীদের রেখে গেলেন। তাকে কেরানীগঞ্জে দাফন করা হবে বলে জানা গেছে। তাঁর মৃত্যুতে সংস্কৃতি জগতে গভীর শুন্যতার সৃষ্টি হলো।

মিতা হক, জন্ম ১৯৬২, মৃত্যু ২০২১।

মিতা হক ১৯৬২ সালে জন্মগ্রহণ করেন। মিতা হক প্রখ্যাত অভিনেতা খালেদ খানের সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। খালেদ ২০১৩ সালের ২০ ডিসেম্বর মৃত্যুবরণ করেন।
গতবছর বাংলাদেশ সরকার মিতা হককে একুশে পদকে ভূষিত করে। এছাড়াও তিনি ২০১৬ সালে শিল্পকলা পদক লাভ করেন। এরপর কবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ১৫৬তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে মিতা হককে বাংলা একাডেমির রবীন্দ্র পুরস্কার দেওয়া হয়। একই বছর চ্যানেল আই প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত ‘রবি-চ্যানেল আই রবীন্দ্রমেলা’য় রবীন্দ্র সঙ্গীতে অসামান্য অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে মিতা হককে সম্মাননা দেওয়া হয়।

মিতা হক প্রথমে তার চাচা ওয়াহিদুল হক এবং পরে ওস্তাদ মোহাম্মদ হোসেন খান ও সনজীদা খাতুনের কাছে গান শেখেন। ১৯৭৪ সালে তিনি বার্লিন আন্তর্জাতিক যুব ফেস্টিভালে অংশ নেন। ১৯৭৬ সাল থেকে তিনি তবলা বাদক মোহাম্মদ হোসেন খানের কাছে সঙ্গীত শেখা শুরু করেন। ১৯৭৭ সাল থেকে নিয়মিত তিনি বাংলাদেশ টেলিভিশন ও বেতারে সঙ্গীত পরিবেশনা করছেন। তাঁর প্রকাশিত এলবামের সংখ্যা ১৬টি। তার ১০টি বের হয়েছে বাংলাদেশ থেকে এবং ৬টি কলকাতা থেকে। তিনি দুই বাংলায় জনপ্রিয় রবীন্দ্রসঙ্গীত শিল্পী হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠা করেন।

তিনি সুরতীর্থ নামে একটি সঙ্গীত প্রশিক্ষণ দল গঠন করেন যেখানে তিনি পরিচালক ও প্রশিক্ষকে হিসেবে কাজ করছেন। এছাড়া তিনি ছায়ানটের রবীন্দ্রসঙ্গীত বিভাগের প্রধান ছিলেন।তিনি রবীন্দ্রসংগীত সম্মেলন পরিষদের সহ-সভাপতি ছিলেন।

0 0 vote
Article Rating
Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments