মুগ্ধ করলো জন মার্টিনের নাটক ‘লীভ মি এলোন’, আবারও মঞ্চায়ন ১৮ নভেম্বর

99


প্রশান্তিকা রিপোর্ট: দীর্ঘ ১৬ বছর পর সিডনিবাসী উপভোগ করলেন প্রখ্যাত অভিনেতা, নাট্যকার ও নির্দেশক জন মার্টিনের মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক ‘লীভ মি এলোন’ নাটকটি। গত ১০ নভেম্বর সিডনির ওয়ালীপার্কে সংস্কৃতি উৎসব কবিতা বিকেলের মুস্তাফা মনোয়ার মঞ্চে হরাইজন থিয়েটারে নাটকটির মঞ্চায়ন হয়। দর্শকদের চাহিদার কারনে আগামী ১৮ নভেম্বর রোববার একই মঞ্চে নাটকটি আবারও অনুষ্ঠিত হবে। নাটকটি পরিবেশনায় ছিলো সিডনিতে মঞ্চনাটকের প্রথম সংগঠন আলাপন থিয়েটার। আলাপনের পক্ষ থেকে জন মার্টিন ও লাভলি মোস্তফা জানান, সিডনির বাইরে ক্যানবেরা সহ অস্ট্রেলিয়ার আরো কয়েকটি শহরে নাটকটির প্রদর্শনীর জন্য অনুরোধ এসেছে। এছাড়া সিডনিতে ১৮ নভেম্বরের শো’র পর নাটকটির পর পর আরো বেশ কয়েকটি প্রদর্শনীর আয়োজন চলছে।

গত সপ্তাহের মঞ্চায়নে সাধারন দর্শকদের সঙ্গে সিডনির সুধীজনেরা নাটকটি দেখতে আসেন। কমিউনিটি নেতা ও রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব গামা আব্দুল কাদির নাটকটি শেষে বললেন, তিনি ১৬ বছর আগেও নাটকটি দেখেছেন। যতবার দেখেন ততোবার মুক্তিযুদ্ধের বিশেষ অনুভূতি হৃদয়কে নাড়া দেয়। অভিনয় শিল্পীদের তিনি ভূয়শী প্রশংসা করেন। বিশেষ করে বাবার ভূমিকায় গোলাম মোস্তফা এবং মেয়ের ভূমিকায় মৌসুমি মার্টিনের অভিনয় তাকে মুগ্ধ করেছে।
আরেক মুগ্ধ দর্শক আ্যাডওয়ার্ড অধিকারী বললেন, নাটকটির কাহিনী হৃদয়স্পর্শী ও অভিনয় খুব ভালো লেগেছে।
সাংবাদিক ও কলামিস্ট কাজী সুলতানা শিমি বলেন, নাটকটি তিনি প্রথম দেখলেন, অভিনয়, শিল্পনির্দেশনা, লাইট সবকিছুতেই তিনি মুগ্ধ হয়েছেন।
পরিবার সহ নাটক দেখতে এসেছিলেন, রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব আলতাফ হোসেন লাল্টু। তাদের মুগ্ধতার কথা তিনি নাটকশেষে পুরো দলকে জানিয়ে গেলেন।
প্রশান্তিকা সম্পাদক আতিকুর রহমান শুভ বললেন, এতো সিম্পল একটি সেট অথচ নান্দনিক। নির্দেশক আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধ পরবর্তী সময়ের সামাজিকতা ও দ্বন্দ্ব ফুটিয়ে তুলেছেন।নাটকের প্রত্যেক অভিনেতা, অভিনেত্রী এমনকি ব্যাকগ্রাইন্ড মিউজিক ও মিতা আতিকের কন্ঠে গানটাও চমৎকার লেগেছে।

নির্দেশক জন মার্টিন বলেন, ‘সিডনিতে লিভ মি এলোন আমাদের প্রথম মঞ্চনাটক। মুক্তিযুদ্ধ কখনো পুরানো হয় না। স্বাধীনতা আর মুক্তিযুদ্ধের দ্বন্দ্ব নিয়ে বেড়ে উঠেছে একটি প্রজন্ম। সেই দ্বন্দ্ব ওদের মগজে বিদ্বেষ জমিয়েছে। অথচ ওদের সেই হতাশার গল্প আমরা শুনিনি। মুক্তিযুদ্ধহীন এক ইতিহাস বিশ্বাস করে, বড় হতে হতে ওদের সাথে কখন যে অনেক দূরত্ব তৈরি হয়ে গেছে সেই বিশ্বাস ও বিস্ময়ের প্রশ্নগুলোই এই নাটকের প্রতিপাদ্য।
তিনি আরো বলেন, সিডনিতে মহিলা সমিতির পরিবেশ তৈরি করতে যে ভালোবাসা আমাদের প্রয়োজন আমরা সেটা অনুভব করেছি’। তিনি দর্শকদের ধন্যবাদ দিয়ে বলেন, ‘নাটক শুরুর আগে ‘লীভ মি এলোন’ নাটকের নান্দনিক পোস্টার এবং নাটকের বই বিক্রি হয়েছে। যারা কিনেছেন তারা বলেছেন যে শুদ্ধ মঞ্চ নাটক দেখার এই দিনটি তারা অনেক দিন মনে রাখবে। এই প্রবাসে বাংলা নাটকের পাখা মেলার দায়িত্ব আপনার।’

মঞ্চনাটকটিতে অভিনয় করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টেলিভিশন, চলচ্চিত্র ও ফটোগ্রাফি বিভাগের খণ্ডকালীন শিক্ষক এবং ঢাকা পদাতিকের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা সদস্য গোলাম মোস্তফা। মঞ্চনাটকটির কাহিনি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘নাটকটি একটি মুক্তিযোদ্ধার মেয়েকে কেন্দ্র করে আবৃত। আমরা যখনি এ নাটকটি করি তখনই আপ্লুত হয়ে পড়ি। মনে হয় যেন নিজের গল্পই বলে যাচ্ছি।’ তিনি নিজেও একজন মুক্তিযাদ্ধা। নাটকের শেষ সিকোয়েন্সের আবেগ ও কান্নার রোল নাটক শেষ হওয়ার পরও থেকে যায়। দর্শকদের অভিনন্দনের সাড়া দেয়ার সময়েও তিনি কাঁদছিলেন।

নাটকটিতে আরো অভিনয় করেছেন মৌসুমি মার্টিন, মীর সাদিক, অদিতি শ্রেয়শী বড়ুয়া, মিতুল হক। কন্ঠ: মিতা আতিক; আলো, রচনা ও নির্দেশনা: জন মার্টিন; সার্বিক ব্যবস্থাপনা: রোনাল্ড পাত্র; মঞ্চ অধিকর্তা: লাভলী মোস্তফা।

আসছে মঞ্চায়নে নাটকটির টিকেট পেতে লগইন করুন:
https://trendyideas.com.au/products/leave-me-alone