মেলবোর্নে অসি বাংলা সিস্টারহুডের মিলনমেলা

 প্রশান্তিকা ডেস্ক: গত ২৩ মার্চ অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্নে আয়োজিত হয়ে গেলো এদেশে বসবাসকারী বাংলাদেশী মেয়েদের এক অভিনব মিলন মেলার। শুধু মেয়েদের নিয়ে এতো বড় পরিধির এমন একটি আয়োজন মেলবোর্নে এই প্রথম। এর আয়োজক ছিলেন  অস্ট্রেলিয়ান বাংলাদেশী নারীদের নিয়ে তৈরি করা প্রথম  ফেসবুক গ্রুপ ‘অসি বাংলা সিস্টারহুড’ এর ফাউন্ডার জান্নাত।

এই গ্রুপের পথচলা খুব বেশিদিনের না হলেও  সেই তুলনায় প্রাপ্তিটা অনেক বেশি। গ্রুপের সদস্য সংখ্যা এখন প্রায় ৭৫০০।অস্ট্রেলিয়ার  বুকে থাকা সব অভিবাসীদের মাঝে  বাংলাদেশই একমাত্র দেশ যাদের  শুধু মাত্র মেয়েদের নিয়ে এতো বড় পরিসরের একটা সংগঠন রয়েছে। দেশ থেকে এতো দূরে থেকেও বাংলাদেশী নারীদের  মাঝে এই ঐক্যতার উদাহরণ সত্যিই প্রশংসনীয়।

অস্ট্রেলিয়ায় বসবাসকারী মেয়েদের নিত্য প্রয়োজনের একটা সাপোর্ট সিস্টেম বলা যেতে পারে এই গ্রুপটাকে।ভিসার তথ্য থেকে রান্নার উপকরন,বাচ্চার অসুস্থতার  কারন থেকে ট্যাক্স রিটার্ন এর নিয়ম, এমনকি ফ্যামিলি ভায়োলেন্স এর আইনী সহায়তা -সব বিষয়েই আলোচনা,  আইডিয়া আর ইনফোরমেশন শেয়ার করা হয় এই গ্রুপে।সব পেশার, সব বয়সের নারীরা সমানভাবে একে অন্যকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়ে একে অন্যের পাশে এসে দাঁড়ায় এইখানে।

মেলবোর্নের এই  মিলনমেলার আয়োজনটি  উদযাপিত হয় সম্পুর্ন ভিন্নভাবে।  আয়োজনটির জমকালো ডেকোরেশানের থিম ছিলো ফ্লোরাল। আয়োজনটি এমনভাবেই সাজানো হয়েছিলো যেন মনে হয়  ফুলে সাজানো বাগানে বসেছে শত পরীদের মেলা। স্বাধীনতার এই মার্চ মাসে লাখো শহীদদের স্মরণ করে  অনুষ্ঠানটির সুচনা হয় একটি দেশের গান দিয়ে। উপস্থিত ২৫০ অতিথিদের নিয়ে সান্ধ্যভোজনের পাশাপাশি  ছিলো নৃত্য পরিবেশনা,মজার গেম শো, সম্মাননা প্রদান, আর বাংলা গানে- নাচে  ভরপুর একটি অসাধারন বিকেল যা সবার হ্রদয়ে স্মরনীয় হয়ে থাকবে। আয়োজনের উপস্থাপনার দায়িত্বে  ছিলেন ফারিনা এবং সেঁজুতি।

এই আয়োজনের জন্য জান্নাত বিশেষ কৃতজ্ঞতা জানান,  পরিকল্পনা  টিমের ফারিনা, গঞোত্রী, সেতু এবং শর্না কে  যারা শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত সব ধরনের আইডিয়া এবং প্ল্যানিং এ ভুমিকা রেখেছে এবং  ব্যবস্থাপনা টিমের  ৬ জন ভলান্টিযারকে যাদের সহায়তায় এই আয়োজনটি সফল হয়েছে।

এই আয়োজনের সবচেয়ে স্মরনীয় মুহূর্ত ছিলো যখন  সব অতিথিরা একই সাথে গলা মিলিয়ে গাইলেন দেশের কিছু হারানো দিনের  প্রিয় গান।অনুষ্ঠানটি শেষ হয় জমজমাট বাংলা গানের সাথে সবার অংশগ্রহণে প্রাণবন্ত নাচের মাধ্যমে।

এই মিলনমেলার আয়োজক জান্নাত মনে করেন, কোন পূর্ব অভিজ্ঞতা ছাড়া এমন একটা আয়োজন ছিলো খুবই চ্যালেঞ্জিং। কিন্তু সবার সহযোগিতায় এটি সফল হয়েছে। এই সফলতার পেছনে তিনি বিশেষ কৃতজ্ঞতা জানান তার  জীবনসঙ্গী  আনিসুল ইসলামকে যার  সার্বিক সহযোগিতার  কারনে এবং নিরলস  সাহায্যে জান্নাত অনুষ্ঠানটি সুন্দর ও সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে সক্ষম হয়েছেন।

প্রবাসে বসবাসকারী নারীদের ঘরে বাইরে অনেক ভূমিকা রাখতে হয়,এই ব্যস্ত জীবনে মেয়েরা যেন নিজের জন্য একটা দিন বের করে নেয়,যেদিন নিজের মতো করে শুধু নিজের জন্য আনন্দ করবেন তারা,প্রাণ খুলে হাসবে, আনন্দে মেতে উঠবে, এমনি একটি দিন উপহার দেয়ার প্রয়াসই অসি বাংলা সিস্টারহুড এর এই আয়োজনের পেছনের মূলমন্ত্র।