রিফাত হত্যার ১৩ আসামি শনাক্ত: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

  •  
  •  
  •  
  •  

 124 views

বরগুনায় গত বুধবার দিনদুপুরে কলেজছাত্র রিফাত শরীফকে কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় সারাদেশে তোলপাড় শুরু হয়েছে। খুনিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেয়ার দাবি উঠেছে। জড়িতদের যেকোনো মূল্যে গ্রেপ্তার করতে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নির্দেশ দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘প্রধানমন্ত্রী নির্দেশ দিয়েছেন, পুলিশ অত্যন্ত কঠোর অবস্থানে আছে। যারা ঘটনার সঙ্গে জড়িত তাদের গ্রেপ্তার করা হবে, তাদের গ্রেপ্তারের জন্য অভিযান চলছে।’

তিনি আরও বলেন, “কোনো অপরাধ সংগঠনের পর অপরাধীরা পালানোর চেষ্টা করে এটাই স্বাভাবিক। তাই অপরাধীদের রাতারাতি গ্রেফতার করা সম্ভব হয় না। এ ঘটনায় কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না। কেউ যাতে পালাতে না পারে সেজন্য ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।”

এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার রাত ৮টা পর্যন্ত তিন আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ ও ১৩ জন আসামিকে শনাক্ত করা হয়েছে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান কামাল বলেছেন, “রিফাতকে কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় জড়িত কাউকে ছাড় দেয়া হবে না। রিফাতের খুনিরা যাতে দেশত্যাগ করতে না পারে সেজন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে হাইকোর্ট নির্দেশ দিয়েছে।”

তিনি আরও বলেন, “পুলিশ আসামিদের গ্রেফতার করতে তৎপরতা চালাচ্ছে। এরইমধ্যে তিনজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এ ঘটনা ঘটার সঙ্গে সঙ্গে পুলিশ অপরাধীদের ধরতে কাজ শুরু করে। ১০ বছর আগের পুলিশ আর এখনকার পুলিশের দক্ষতায় পার্থক্য আছে।”

রিফাতের স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা বলেছেন ‘আমার সামনেই সন্ত্রাসীরা আমার স্বামীকে কুপিয়ে হত্যা করে। আমি শত চেষ্টা করেও তাকে রক্ষা করতে পারিনি। আমার আশপাশে অনেক মানুষ ছিল। হামলার সময় আমি চিৎকার করেছি, সবাইকে বলেছি-ওরে বাঁচান। কিন্তু কেউ এসে আমারে একটু সাহায্যও করে নাই।’

মামলার ৪নং আসামি চন্দনকে (২১) গতকাল সকালে গ্রেপ্তার করা হয়। এরপর দুপুরে গ্রেপ্তার করা হয় মামলার ৯নং আসামি হাসানকে। এ ছাড়া নাজমুল হাসান নামে সন্দেহভাজন একজনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

পুলিশ সদর দপ্তরের এআইজি মিডিয়া মো. সোহেল রানা বলেন, “আসামিদেরকে গ্রেফতারের লক্ষ্যে জেলা পুলিশের পাশাপাশি পিবিআই,সিআইড র‌্যাব এবং ডিএমপির কাউন্টার টেররিজম ইউনিট কাজ করছে। আশা করছি সকল আসামিকে দ্রুত আইনের আওতায় আনা সম্ভব হবে। একইসাথে অভিযুক্তদের বিষয়ে কোন তথ্য থাকলে তা পুলিশকে জানাতে অনুরোধ করা হয়েছে।”

আয়েশা দাবি করেন, নয়ন, রিশান ফরাজী ও রিফাত ফরাজী এই হামলা চালিয়েছে। তিনি বলেন, নয়ন বিভিন্ন সময় তাকে বিরক্ত করত, এসব ঘটনা পরিবারকে না জানাতে তাকে হুমকি দিত।

২৬ জুন বুধবার বরগুনার কলেজ সড়কের ক্যালিক্স কিন্ডার গার্টেনের সামনে দিনদুপুরে স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকার সামনে রিফাত শরীফকে কুপিয়ে মারাত্মক জখম করা হয়। রাতে রিফাতের বাবা ১২ জনের নাম উলেস্নখ করে ও অজ্ঞাত পাঁচ থেকে ছয়জনকে আসামি করে বরগুনা সদর থানায় হত্যা মামলা করেন।

 

0 0 vote
Article Rating
Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments