রূপালী পর্দার হিরন্ময় মহানায়ক । অজয় দাশগুপ্ত

  •  
  •  
  •  
  •  

 88 views

আজ সেলুলয়েডের রূপকথার নায়কের শততম জন্মদিন। তিনপুরুষের আলোয় আলোকিত বাংলা বাঙালির সাহিত্য সংস্কৃতির জগত। তিনজনই বিশ্বমানের। পিতামহ উপেন্দ্রকিশোর রায়চৌধুরী কল্পকথা ও রূপকথার জনক। পিতা সুকুমার রায়। এ ভদ্রলোক এক বিস্ময়ের নাম। এতো অল্প আয়ুতে এতোটা কালজয়ী হওয়া? বাংলা ছড়ার স্রষ্টা। ননসেন্স রাইমস হয়ে একুশে আইন কিংবা সৌমিত্রের মতো অভিনেতার চিরসাথী হবার মতো ছড়ার বই, আবোল তাবোলের জনক।

পুত্রের ভয় ছিলো আয়ু নিয়ে। কিন্তু না ঈশ্বর বা প্রকৃতি জানেন কাকে কতোটা দরকার। পরিপূর্ণ শ্রেষ্ঠ বাঙালি হবার জন্য রবীন্দ্রনাথ ও তাঁকে যে দীর্ঘায়ু হতে হবে এটাই ছিলো নিয়তি। যতোদিন বেঁচেছেন ততোদিন ক্যামেরা ও কলমে ছবি এঁকেছেন। সচল ছিলেন। তাঁর চলমানতাই তখন শিল্প। একডজন গোয়েন্দা গল্প, ফেলু দা, রহস্যময় কিশোর সাহিত্য যে তাঁর মুখের দিকে তাকিয়ে।

আগন্তুক ছবিটি বারবার দেখি। ছবির শেষে মনমোহন বাবু তাঁর অসমবয়সী ছোট বন্ধু সাত্যকি’র কাছে জানতে চেয়েছিলেন, জীবনে কি হবে না? বালকটি ডাগর চোখ তুলে বলেছিল, “কূপমণ্ডূক”।
সত্যজিৎ রায় চান নি, চাইতেন না বাঙালি কূপমণ্ডূক বা কুয়োর ব্যাঙ হোক। কিন্তু কী নির্মম বাস্তবতা। ২০১৯ সালে আমি কলকাতা থাকার সময় বাঙালি এক ট্যাক্সি ড্রাইভার সহযোগে তাঁর বাড়িতে যাবার পথ খুঁজছিলাম। মোটামুটি পড়াশোনা জানা সে যুবকটির কাছে জানতে চেয়েছিলাম, তুমি নিশ্চয়ই চেনো সত্যজিৎ রায় কে? সোৎসাহে জবাব দিয়েছিল, চিনবো না? প্রসেনজিৎ এর বাবা।
রায় বাবু, উভয় বাংলার কূপমন্ডুকতা এখন চরমে।

হোক। তারপরও বাঙালির দিগন্ত রেখায় উজ্জ্বলতম নামের একটি আপনি। ছায়াছবি অনেকে নির্মাণ করেন। মৌলিক ও নিজস্বতায় নিজেই একটি ভূবন হয়ে ওঠা? সে কি সবার কাজ?
সৌমিত্র বা ধৃতিমানের মতো প্রতিভার মূল্যায়ন, নায়ক বলতে যে উত্তম কুমার, দেবী ছবির পোস্টারে লিখে দেয়া, ধর্মের বর্বর প্রতিচ্ছবি কিংবা গণশত্রু তে চরণামৃতের নামে বিষপান সবই আপনার ক্যামেরায় বিমূর্ত। অনঙ্গ বৌ হবার জন্য যে পদ্মা পাড়ের ববিতাকে দরকার তাও আপনিও জানতেন।

তারুণ্যের সে ছবিটা আজীবন চোখ মুদে দেখতে চাই, দুই লিকলিকে বাঙালি হাওয়ায় ভাসতে ভাসতে চলে যাচ্ছে। একজন হাত উঁচিয়ে আরেকজন ঢোল বাজিয়ে। গুপি বাঘার সে উধাও হবার পথে অনুপ ঘোষাল গাইছেন, আহা কী আনন্দ আকাশে বাতাসে…

আজ আপনার শততম জন্মদিন। হিমালয় পাদদেশের এক কোণে ঘনবসতির বাংলায় জন্ম নেয়া আনন্দ কুসুম আপনাকে এক’শ প্রণতি।

অজয় দাশগুপ্ত
লেখক ও কলামিস্ট
সিডনি, অস্ট্রেলিয়া।

0 0 vote
Article Rating
Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments