শরীয়তপুর জেলাবাসী অষ্ট্রেলিয়া’র বার্ষিক নৈশভোজ ও সাংস্কৃতিক সন্ধ্যা উদযাপন

  •  
  •  
  •  
  •  

প্রশান্তিকা ডেস্ক: গত ১৭ নভেম্বর রবিবার সন্ধ্যায় লাকেম্বা পাবলিক লাইব্রেরী হলে শতাধিক শরীয়তপুরবাসীর উপস্থিতিতে আনন্দ ও উল্লাসের মধ্য দিয়ে প্রথম বারের মত বাৎসরিক নৈশ ভোজ ও সাংস্কৃতিক সন্ধ্যা উদযাপিত হয়েছে। অনুষ্ঠানের শুরুতে কোরান তেলওয়াত, বাংলাদেশ ও অষ্ট্রেলিয়ার জাতীয় সংগীত পরিবেশনের পর সদ্য প্রয়াত স্বপন দেওয়ানের বাবা, কেয়া নুরের মা এবং নিরুপমার আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দোয়া করা হয়। অনুষ্ঠানে ছোট্ট সোনামনিদের জন্য ফেইস পেন্টিং, ফেয়ারী ডান্স, কবিতা আবৃতি ও লোকগীতিসহ আধুনিক গান পরিবেশিত হয়।

অনুষ্ঠানে ফারিয়া আহমেদ, রুনু রফিক, সুলতানা নুর ও সুজন মনমুগ্ধকর গান পরিবেশন করেন। অনুষ্ঠানটি যৌথভাবে সঞ্চালনা করেন মাসুম দেওয়ান, পলাশ হক, আসমা আলম ও সিরাজুল ইসলাম।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্হিত ছিলেন ঢাকাস্থ ‘শরীয়তপুর জেলা সমিতি’র সভাপতি জনাব আনিস উদ্দিন মিয়া। জনাব আনিস উদ্দিন মিয়া তার বক্তব্যে শরীয়তপুর জেলার কৃষ্টি ও ঐতিহ্য বিশদভাবে তুলে ধরে ১৯৮৪ সালে ইতিহাস খ্যাত ফরায়েজী আন্দোলনের নেতা হাজী শরীয়তউল্লাহর নামে ৬টি উপজেলার সমন্বয়ে নুতন জেলা শরীয়তপুর স্থাপনের প্রেক্ষাপটও বর্ননা করেন। সুদুর প্রবাস অষ্ট্রেলিয়ায় বসবাসরত শরীয়তপুর বাসীদের ঐক্যবদ্ধ হয়ে পারস্পরিক কল্যানে অত্র সংগঠন গড়ে তোলায় উপস্থিত শরীয়তপুর জেলাবাসীদের অভিনন্দন জ্ঞাপন করেন।

যাদের সার্বিক সহযোগিতায় অনুষ্ঠানটি সুষ্ঠুভাবে উদযাপিত হয় তন্মধ্য জনাব বেলায়েত হোসেন, মোঃ আলী সিকদার, নুরুল হক মিলন, মাসুম দেওয়ান, আবু বক্কর, পলাশ হক, সিরাজুল ইসলাম, শরীফ আহমেদ, স্বপন দেওয়ান, শফিক সেখ, আসমা আলমের নাম উলেখ্যযোগ্য। অনুষ্ঠানের সার্বিক তত্বাবধায়ন ও পরিকল্পনায় ছিলেন অত্র সংগঠনের কো-অর্ডিনেটর জনাব রফিক উদ্দিন।
সংবাদ বিজ্ঞপ্তি।