সাদেক হোসেন খোকা শায়িত হবেন জুরাইনে বাবা মায়ের সমাধি পাশে

  •  
  •  
  •  
  •  
অবিভক্ত ঢাকার সাবেক মেয়র ও বীর মুক্তিযোদ্ধা সাদেক হোসেন খোকা

প্রশান্তিকা ডেস্ক: অবিভক্ত ঢাকার সাবেক মেয়র ও সাবেক মন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা সাদেক হোসেন খোকার দেহ বৃহস্পতিবার বাংলাদেশে এসে পৌঁছাবে। এরপর ঢাকায় আরেকবার জানাযা ও সকল আনুষ্ঠানিকতা শেষে জুরাইনে তাঁর অন্তিম ইচ্ছা অনুযায়ী মা ও বাবার পাশে সমাহিত করা হবে। গতকাল নিউ ইয়র্কে তাঁর প্রথম নামাযে জানাযা হয়। সেখানে প্রবাসের সর্বস্তরের মানুষের ঢল নামে। জানাযায় বড় ছেলে প্রোকৌশলী ইশরাক হোসেন শোকাগ্রস্ত বক্তব্য রাখেন। এসময় ছোট ছেলে ইশফাক হোসেনও উপস্থিত ছিলেন। জ্যামাইকা মুসলিম সেন্টারে নামাজে জানাযার আগে বীর মুক্তিযোদ্ধা সাদেক হোসেন খোকাকে স্যালুট জানান সেক্টর কমান্ডারস ফোরাম যুক্তরাষ্ট্র শাখার নেতারা।

ইত্তেফাক জানায়, “ যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির নেতাকর্মী ছাড়াও দলমত নির্বিশেষে অসংখ্য প্রবাসী সাদেক হোসেন খোকার জানাযায় অংশ নেন। মসজিদের প্রতিটি ফ্লোর কানায় কানায় ভরে যায়। মসজিদের আশেপাশের সড়কেও তার জানাযায় অংশ নেন শত শত মানুষ। খোকার মরদেহ আগামীকাল বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা ১০ মিনিটে এমিরেটস এয়ারওয়েজের একটি ফ্লাইটে দেশে পৌঁছাবে।সাদেক হোসেন খোকার শ্যালক শফিউল আজম খান জানান, পরিবারের পক্ষ থেকে তার মৃতদেহ ঢাকায় আনার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তার ইচ্ছা অনুযায়ী জুরাইন কবরস্থানে তাকে দাফন করা হবে।
তিনি বলেন, দুই বছর আগে সাদেক হোসেন খোকার বাংলাদেশ পাসপোর্টের মেয়াদ শেষ হওয়ার পর, নিউইয়র্কে বাংলাদেশ দূতাবাসে তিনি মেয়াদ বাড়ানোর আবেদন করেও জবাব পাননি। এখন তার মৃতদেহ ঢাকায় নেওয়ার জন্য বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে ট্রাভেল ডকুমেন্টের মাধ্যমে তাঁর মৃতদেহ বাংলাদেশে পৌঁছাবে।”

ম্যানহাটনে সাদেক হোসেন খোকার প্রথম জানাযার আগে দোয়া, ছবি: সংগ্রহীত।

নিউইয়র্কের ম্যানহাটনের মেমোরিয়াল স্লোয়ান ক্যাটারিং ক্যান্সার সেন্টারে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বাংলাদেশ সময় সোমবার দুপুর ১টা ৫০ মিনিটে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন এই বীর মুক্তিযোদ্ধা। জানা গেছে, ম্যানহাটনে জানাযার আগে তাঁর দেহ জাতীয় পতাকা দিয়ে ঢেকে দেয়া হয়।