সিঙ্গাপুরে করোনা ভাইরাসের দ্বিতীয় আঘাত।। অসংখ্য প্রবাসী বাংলাদেশী আক্রান্ত

  •  
  •  
  •  
  •  

প্রশান্তিকা ডেস্ক: চীন এবং হংকংয়ের পরেই করোনা ভাইরাস আঘাত হেনেছিলো সিঙ্গাপুরে। দেশটির সুচিকিৎসা ব্যবস্থা এবং জনগণের সচেতেনতায় প্রায় ভাইরাস শুন্য হয়ে এসেছিলো। রাস্তাঘাটে গাড়ি, স্বাভাবিক জনজীবনে ফেরার ঠিক পরপরই আবার আঘাত হেনেছে করোনা। ১৭ ই মার্চ পর্যন্ত সিঙ্গাপুরে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ছিলো ২৬৬। অতি সম্প্রতি দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ায় ৬ হাজারে। এখন সিঙ্গাপুরকে নিউ ইয়র্ক, ইতালী বা স্পেনের সাথে তুলনা করা হচ্ছে। করোনা আবারো কেন আঘাত হেনেছে?

সিঙ্গাপুরে করোনার দ্বিতীয় পর্যায়ের আক্রমণে আক্রান্ত হচ্ছে প্রবাসী জনসংখ্যা।

এর কারণ হিসেবে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা WHO জানাচ্ছে, প্রথম বারের রোগীদের হাসপাতালে রেখে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। তারপর তাদের দেহে করোনা টেস্টে নেগেটিভ আসার পরেই হোম কোয়ারেন্টাইন বা আইসোলেশনে না রেখে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। অন্যদিকে লকডাউন বা জরুরী অবস্থা না থাকায় সোশ্যাল ডিসট্যান্স মানা হয় নাই। ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, স্কুল, ধর্মীয় উপাসনালয়, রেস্টুরেন্টসহ প্রায় সকল প্রতিষ্ঠান স্বাভাবিক কর্মকান্ড চালিয়ে আসছিলো। এছাড়া দেশটিতে ছোট ছোট ডরমেটরী বা কলোনীতে বাস করা অসংখ্য মানুষ যারা বাংলাদেশ সহ এশিয়ার বিভিন্ন দেশ থেকে গিয়েছেন এবং নির্মাণ শ্রমিক হিসেবে কাজ করছেন। তারা গাদাগাদি করে থাকার কারণে ভাইরাসটি দ্রুত ছড়াচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী লি সিয়েং লুনও তাঁর বক্তব্যে একই আশংকা ব্যক্ত করেছেন। তবে ওই সকল বাসস্থান থেকে শ্রমিকদের অন্যত্র সরিয়ে নেয়া হচ্ছে এবং কোয়ারেন্টাইন আইন কঠোর করা হচ্ছে বলে তিনি জানান।
দেশটিতে মোট জনসংখ্যা ৫৭ লাখ যার আয়তন নিউ ইয়র্কের চেয়েও ছোট। তাই WHO ধারণা করছে, সিঙ্গাপুরে করোনা যেভাবে ছড়াচ্ছে তাতে অদূর ভবিষ্যতে নিউ ইয়র্কের চেয়েও ভয়াবহ হতে পারে।

সিঙ্গাপুর একটি ছোট্ট দ্বীপ সদৃশ দেশ। তিনদিকে জলবেষ্টিত হলেও একমাত্র মালয়েশিয়ার সঙ্গে সড়ক যোগাযোগ রয়েছে। সেক্ষেত্রে কঠোর কোয়ারেন্টাইন আইন এবং স্থল ও বিমানবন্দরে কঠোরতা পালন করলে হয়তো ঝুঁকি এড়ানো যেতে পারে।

দেশটিতে অসংখ্য প্রবাসী বাংলাদেশী করোনায় আক্রান্ত হচ্ছে। গত রোববার পর্যন্ত দেশটিতে প্রায় তিন হাজার বাংলাদেশী আক্রান্ত হয়েছে। সিঙ্গাপুরের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুযায়ী, গত রোববার পর্যন্ত দেশটিতে ২ হাজার ৯৬২ জন বাংলাদেশি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। অবশ্য গতকাল এক দিনেই দেশটিতে নতুন করে আরও ১ হাজার ৪২৬ জন আক্রান্ত বলে জানিয়েছে দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। এঁদের মধ্যে ১৬ জন সিঙ্গাপুরের নাগরিক, বাকিরা বিভিন্ন দেশের। দেশটিতে সর্বমোট আক্রান্তের সংখ্যা ৮ হাজার এবং মৃতের সংখ্যা ১১।

0 0 votes
Article Rating
Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments