সিডনির বিশেষ অনুষ্ঠানে দর্শক মাতালেন কুমার বিশ্বজিৎ

  •  
  •  
  •  
  •  

   

আরিফুর রহমান: গত ১৯ জুলাই শুক্রবার সন্ধ্যায় সিডনির ব্রাইটন লি স্যান্ডের নভোটেল হোটেলের দর্শক ভর্তি হলরুমে সঙ্গীতের মূর্ছনায় মাতালেন বাংলাদেশের লিভিং লেজেন্ড শিল্পী কুমার বিশ্বজিৎ। দর্শকেরা সবাই নির্ধারিত টেবিলে বসে বুফে ডিনার শেষ করার পরেই শুরু হয় শিল্পীর জমকালো গান। প্রথমেই শুরু করেন একটি দেশের গান দিয়ে। তারপর তাঁর স্বভাবসুলভ কথাবার্তা ও হাস্যরস দিয়ে দর্শকদের মাতিয়ে রাখেন। তিনি একটি করে লাইন বলেন আর দর্শকেরা অট্টহাসির উচ্ছ্বাস ছড়ান।

‘যেখানে সীমান্ত তোমার সেখানেই বসন্ত আমার’ গানটি শুরু করলে হলভর্তি দর্শক ঠোঁট মেলান। তারপর একে একে গেয়ে শোনান, ‘তুমি রোজ বিকেলে আমার বাগানে’, ‘ও ডাক্তার’, ‘একদিন বাঙ্গালী ছিলাম রে’ সহ অসংখ্য গান। গান গাওয়ার সময় প্রায় সকলের হাতে মোবাইল ফোনে লাইভ দেয়া দেখে কুমার বিশ্বজিৎ বলেন, আপনারা মোবাইল বন্ধ করে গান উপভোগ করুন। অনুষ্ঠানের একপর্যায়ে মঞ্চে আসেন প্রখ্যাত কলামিস্ট ও লেখক অজয় দাশগুপ্ত। তিনি শিল্পীর সঙ্গে চট্টগ্রামের আঞ্চলিক ভাষায় কথোপকথনে মেতে উঠেন এবং দর্শকরা করতালি দিয়ে সেটা গ্রহণ করেন। অজয় দাশগুপ্ত শিল্পী সম্পর্কে বলেন, “কুমার বিশ্বজিৎ গান গাইছেন অাগের মতো। মুছে যাচ্ছে সীমান্ত রেখা, দৃশ্যমান বসন্তে।” এরপর তিনি শিল্পী ও আয়োজকদের ধন্যবাদ দিয়ে মঞ্চ ছেড়ে দেন।

শুভেচ্ছা বক্তব্য দিচ্ছেন অজয় দাশগুপ্ত

অনুষ্ঠানের দ্বিতীয়ার্ধে কুমার বিশ্বজিৎ আবারও গান শুরু করেন। প্রায় বিশটার মতো গান দিয়ে অনুষ্ঠান শেষ করতে প্রায় মধ্যরাত এসে যায়। তারপর দর্শকদের ছবি ও সেলফি তোলার সুযোগ দেন। সিডনির এই অনুষ্ঠানটি ছিলো ডিনার ও গানসহ বিশেষ একটি আয়োজন। সিডনির সুধীজন, রাজনীতিবিদ, সাংবাদিক, লেখক ও সঙ্গীত পিপাসু দর্শকেরা অংশ নেন। অনুষ্ঠান শেষে দর্শকেরা কুমার বিশ্বজিতের সুরের মুর্ছনায় মুগ্ধতা নিয়েই বাড়ি চলে যান।

অনুষ্ঠান শেষে হাস্যজ্জ্বল কুমার বিশ্বজিৎ প্রশান্তিকাকে বলেন, সিডনির দর্শকরা আসলেই অন্যরকম দর্শক, আমি জীবনে হাজার হাজার মানুষের সামনে গান করেছি কিন্তু সিডনির দর্শকদের মতো এতো আপন বা ভালোবাসার দর্শক সত্যিই দুর্লভ ।তিনি এই অনুষ্ঠান সম্পর্কে বলতে গিয়ে বলেন, “মনে হচ্ছে আমি কোন ঘরোয়া বা নিজের মানুষদের সঙ্গে কথাবার্তা বলছি বা গান শুনাচ্ছি। আর এতো ভালো লাগে বলেই বার বার অষ্ট্রেলিয়ায় ফিরে আসি এবং আবারও সিডনি আসতে চাই গান শোনাতে।”

প্রায় সব ধরনের অনুষ্ঠানে যান এমন একজন দর্শক কমিউনিটির নেতা ও রাজনীতিবিদ ফজলুল হক শফিক বলেন, সিডনির অভিজাত ফাইভ ষ্টার হোটেল নভোটেলের গর্জিয়াস হলে ১৫ থেকে ২০ আইটেমের সুস্বাদু ডিনার, হলভর্তি সিডনির বাছাই করা শ’দেড়েক লোকের মধ্যে গান গেয়ে মুগ্ধ করলেন বাংলাদেশের জীবন্ত কিংবদন্তী শিল্পী কুমার বিশ্বজিৎ এবং তাঁর সাথে বাজালেন বাংলাদেশের বিখ্যাত যন্ত্রীশিল্পী মিঠুন চক্র। ধন্যবাদ আল নোমান শামীম এবং তাঁর সহকর্মীদের যারা এই অনুষ্ঠানকে সার্থক করতে কাজ করে গেছেন।”

অনুষ্ঠানটির আয়োজক ব্রান্ডিং বাংলাদেশের কর্নধার মাসিক মুক্তমঞ্চ পত্রিকার সম্পাদক আল নোমান শামীম প্রশান্তিকাকে বলেন, “উৎসবে বাংলাদেশ শীর্ষক এই অনুষ্ঠানটি সম্ভব হয়েছে বাংলাদেশের আল আরাফাহ্ ইসলামী ব্যাংকের সহযোগিতায়। তিনি অনুষ্ঠানের সাথে সম্পৃক্ত সকল সদস্য, শিল্পী, কলাকুশলী, স্পন্সর, সাংবাদিক ও দর্শকদের ধন্যবাদ জানান। শিল্পীর সাথে যন্ত্রসঙ্গীতে ছিলেন ড্রামস, ঢোল ও মাদলে মিঠুন চক্র, বেজ গীটারে বুলবুল, লিড গীটারে ইফতি, কি বোর্ডে সোহেল আজিজ। সার্বিক সঙ্গীত আয়োজনে ছিলেন সঞ্জয় টাবু। পরদিন শনিবার সন্ধ্যায় শিল্পী মেলবোর্নে অনুষ্ঠান করতে সিডনি ত্যাগ করেন।

0 0 votes
Article Rating
Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments