সিডনির লং উইকেন্ডে দুর্গাপূজার উৎসব

  •  
  •  
  •  
  •  

প্রশান্তিকা ডেস্ক: বাঙ্গালী হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বৃহৎ উৎসব দুর্গাপূজা। বাংলাদেশ ও পশ্চিমবঙ্গের সঙ্গে তাল মিলিয়ে অস্ট্রেলিয়া প্রবাসেও মেতে উঠেছে বাঙ্গালীরা। পূজা সামনে রেখে বাঙ্গালী পাড়ায় সাজ সাজ উৎসব বিরাজ করছে।
লিভারপুল, ওয়েন্টওয়ার্থভিল, সেভেন হিলস্, ক্যাম্পসি সহ বিভিন্ন বিপনি বিতানগুলোতে মানুষ পূজার কেনাকেটায় ব্যস্ত ছিলো। আজ ৪ অক্টোবর শুক্রবার সিডনির বিভিন্ন সাবার্ব এবং পূজামণ্ডপে শুরু হয়েছে আনুষ্ঠানিক পূজা অর্চনা। আগামী সোমবার লেবার ডে’র পাবলিক ছুটি থাকায় শুক্র থেকে সোমবার পর্যন্ত উৎসুক বাঙ্গালী সারা লং উইকেন্ড জুড়ে এক মণ্ডপ থেকে আরেক মণ্ডপে যাবে এবং অর্চনায় মেতে উঠবে।

প্রশান্তিকা ডেস্কে সেসব মণ্ডপের তালিকা এসেছে। আগ্রহীদের জন্য সেই তালিকা দেয়া হলো:

দুর্গাপূজা মূলত পাঁচ দিনের অনুষ্ঠান হলেও মহালয়া থেকেই প্রকৃত উৎসবের সূচনা ও কোজাগরী লক্ষ্মীপূজায় তার সমাপ্তি। কোনো কোনো পরিবারে অবশ্য ১৫ দিনে দুর্গোৎসব পালনের প্রথা আছে।
বাংলাদেশ পূজা উদযাপনের তথ্য অনুযায়ী, এবার সারাদেশে ৩১ হাজার ৩৯৮ পূজামণ্ডপে দুর্গোৎসব অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

সিডনির আনন্দধারা’র কর্ণধার শ্রীমন্ত মুখার্জি দীর্ঘ ২২ বছর ধরে অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী বাঙ্গালিদের শারদীয়া পূজাসংখ্যা প্রবাসের দোঁড়গোড়ায় পৌঁছে দিচ্ছেন। শুধু পূজায় নয় তিনি সারা বছর কলকাতায় প্রকাশিত বাংলা বই, পত্র পত্রিকা পাঠকদের জন্য নিয়ে আসেন। তাঁর পাঠকের একটি বড় অংশ বাংলাদেশের বাঙ্গালী।

আনন্দধারায় পূজাসংখ্যার সমাহার

প্রশান্তিকার সঙ্গে কথা প্রসঙ্গে শ্রীমন্ত মুখার্জী বলেন, “আপনাদের ভালোবাসায় আমি ধন্য ! কিছুই অবদান নেই ! একসাথে পথচলা সবাই মিলে ! আনন্দধারায় ভাসা ! এটাই সব ! ভারতীয় উপমহাদেশে শারদোৎসবের সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য এবং পরম্পরাকে বহমান রাখার একটা ক্ষুদ্র প্রচেষ্টা।” তিনি সকলকে শারদীয় শুভেচ্ছা জানান।