R U OK, আপনি ঠিক আছেন তো?

  •  
  •  
  •  
  •  

প্রশান্তিকা ডেস্ক: ধরুন আপনার কাছের কেউ দু:সহ জীবনের মধ্যে দিন পার করছেন। ঠিক সেই মুহূর্তে আপনি তাকে জিজ্ঞাস করলেন, r u ok? এটা খুব সিম্পল একটা প্রশ্ন। কিন্তু যিনি দু:সহ জীবনে আছেন তিনি অনেক নির্ভরতা পেতে পারেন। এমনও হতে পারে তার চলার পথ সুগম হয়ে যেতে পারে। ঠিক এই ভাবনা থেকেই অস্ট্রেলিয়ায় ২০০৯ সালে উদ্ভব হয় r u ok দিবসের। এটি অস্ট্রেলিয়ায় একটি জাতীয় দিবসে পরিণত হয়েছে। এই দিনে টেলিভিশন, পত্রপত্রিকা সহ বিভিন্ন মাধ্যমে এই দিবসের গুরুত্ব তুলে ধরা হয়। মাল্টিকালচারাল এই দেশে এটির বাংলাও করা হয়েছে- আপনি ভালো আছেন?

অস্ট্রেলিয়ার কাউন্সিলের ক্যাম্পেইনে অন্যান্য ভাষার সাথে বাংলায় স্থান পেয়েছে আর ইউ ওকে দিবস।

কীভাবে সৃষ্টি হলো এই দিবস:
এটি শুরু হয়েছে অস্ট্রেলিয়ার ল্যার্কিন ফ্যামিলি থেকে। ১৯৯৫ সাল। ব্যারি ল্যার্কিনকে তাঁর পরিবার ও বন্ধুরা খুব ভালোবাসতো। কিন্তু হঠাৎ তিনি একদিন আত্মহত্যা করে বসলেন। কেউ ভেবে পেলনা কী এমন হয়েছিলো ব্যারির যে তাকে জীবন দিতে হলো। ২০০৯ সালে তাঁর ছেলে গ্যাভিন ল্যার্কিন উপলব্ধি করলেন তাঁর বাবাকে আসলে কেউ কখনও বলেনি- আর ইউ ওকে। শুধু এটুকু বলা বা তাঁর খোঁজ খবর নেয়াটাই জরুরী ছিলো। পরবর্তীতে একটি ডকুমেন্টারিতে তিনি এই এওয়ারনেসের কথা তুলে ধরেন। কিন্তু এটাকেই তারা যথেষ্ঠ ভাবেননি। সারা দেশে ছড়িয়ে দেবার জন্য একটি ন্যাশনাল ক্যাম্পেইন তৈরি করেন। সেই থেকেই এই দিবসের সৃষ্টি। গ্যাভিন মনে করেন যে কোন মানুষের সঙ্গে সহজ সরল কথাবার্তা তাঁর সমস্যা সংকুল জীবনকে বদলে দিতে পারে।

আজ প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন তাঁর নিয়মিত বক্তব্যের প্রারম্ভে আর ইউ ওকে দিয়ে শুরু করেছেন। তিনি বলেন, প্রায় দেড় মিলিয়ন অস্ট্রেলিয়ান বিভিন্ন ভাবে মানসিক সমস্যায় ভূগছেন, তাদেরকে নিয়মিতভাবে বিভিন্ন হেল্পলাইনে সহযোগিতা করা হচ্ছে। তিনি সকলকে এই মহামারি বিধ্বস্ত মানুষের খোঁজ নিতে ফোন করতে পরামর্শ দিয়েছেন।

অস্ট্রেলিয়ায় ৯ সেপ্টেম্বরে সারা দেশে এই দিবস পালিত হয়। এমনকি কোভিডে ঘরবন্দী জীবনে অনেকেই মানসিক সমস্যায় ভূগছেন। আপনি চাইলেই ফোন করে কিছুক্ষণ কথা বলুন। তাকে জিজ্ঞাস করেন- আর ইউ ওকে, আপনি ভালো আছেন তো, কিংবা আপনি কেমন আছেন?

0 0 votes
Article Rating
Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments